শিরোনাম:

২১ আগস্টের উপহাসকারীদের বিচার হওয়া উচিত : তথ্যমন্ত্রী

0

সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক: একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার নির্মম হত্যাকাণ্ড নিয়ে উপহাসকারী রিজভীদেরও বিচার হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, এই হত্যাকাণ্ডে তারেক জিয়ার সর্বোচ্চ শাস্তির পাশাপাশি খালেদা জিয়াকেও বিচারের আওতায় আনা প্রয়োজন।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবি মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু’র শিক্ষা ও প্রযুক্তি ভাবনা : চলমান ও আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় করণীয়’ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যেয় বুধবার একুশে আগস্টে বিএনপিনেতা রুহুল কবির রিজভীর এক মন্তব্যের প্রেক্ষিতে তিনি একথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ২০০৪ সালে এই হত্যাকাণ্ডকে যেভাবে উপহাস করা হয়েছিল, গতকাল রিজভী সাহেব সংবাদ সম্মেলনে একইভাবে এ হত্যাকাণ্ডকে উপহাস করে তিনি বিএনপির ন্যাক্কারজনক ভূমিকারই পুনরাবৃত্তি করেছেন। রিজভী বলেছেন, ‘এটি আওয়ামী লীগের সাজানো ঘটনা, তারা আত্মহত্যা করতে সেখানে গিয়েছিল’। এই ধরনের কথা যারা বলে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, যারা এ ধরনের কথা বলে উপহাস করে, উসকানি দেয়, রিজভী আহমেদসহ তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনা প্রয়োজন। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি খালেদা জিয়াকেও বিচারের আওতায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন, তাকে জিজ্ঞসা করলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গ্রেনেড ব্যবহারের রহস্যসহ আরো বহু সত্য বেরিয়ে আসবে।

মন্ত্রী বলেন, যারা স্বাধীনতা চায়নি, যারা বাংলাদেশের অভ্যূদয় চায়নি, সেই পরিজিত শক্তি রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়ে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পথ বেছে নিয়েছিল। আজকের জঙ্গিবাদ-মৌলবাদের পৃষ্ঠপোষক রাজনৈতিক অপশক্তিও দেশের বিস্ময়কর সমৃদ্ধির কাণ্ডারী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে তাকে বারবার হত্যার অপচেষ্টা চালিয়েছে।

এই রক্তার্জিত স্বাধীনতা আর উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অক্ষুন্ন রাখতে সকল রাজনৈতিক অপশক্তি মোকাবিলায় সমগ্র জাতিকে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে বলে উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ কে এম জাকির হোসেন ভূঞা, কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রওনক মাহমুদ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. মোরাদ হোসেন মোল্ল্যা।

সেমিনারের বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শিক্ষাবিদ ড. সৈয়দ আব্দুল আজিজ ও ড. শাহ আলম মজুমদার।

Share.

About Author

Leave A Reply